ঘাস ফড়িংয়ের প্রজনন তন্ত্র ও রেচন তন্ত্র

প্রজনন তন্ত্র (REPRODUCTIVE SYSTEM)

ঘাসফড়িং একলিঙ্গ প্রাণী। পুরুষ হতে স্ত্রী ঘাসফড়িংকে তাদের ওভিপােজিটর (ovipositor) এবং উদরের পশ্চাৎ অংশ দেখে সহজেই সনাক্ত করা যায়।

১. পুং প্রজনন তন্ত্র (MALE REPRODUCTIVE SYSTEM)

একজোড়া শুক্রাশয় (testis, pl. testes) পুং প্রজনন তন্ত্রের প্রধান অঙ্গ। শুক্রাশয় ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম উদরীয় খন্ডকে অন্ত্রের উপরে অবস্থান করে।

একটি মিডিয়ান লিগামেন্ট দ্বারা শুক্রাশয় পৃষ্ঠীয় প্রাচীরের সাথে সংযুক্ত অবস্থায় থাকে। প্রতিটি শুক্রাশয় ধারাবাহিকভাবে সজ্জিত লম্বাটে ক্ষুদ্র ফলিকল সমন্বয়ে গঠিত। শুক্রাশয়ে শুক্রাণু উৎপন্ন হয় এবং তা শুক্রাশয় হতে অঙ্কীয় পার্শ্বীয় দিকে উত্থিত ভাস ডিফারেন্স (vas deferens) এ প্রবেশ করে।

প্রতিটি ক্রাশয় হতে উত্থিত ভাস ডিফারেন্স নবম উদরীয় খন্ডে অন্ত্রের নিচে মিলিত হয়ে মধ্যরেখা বরাবর পেশিবহুল ক্ষেপন নালি (ejaculatony duct) গঠন করে।

ভাস ডিফারেন্স এর শেষাংশ স্ফীত এবং সেমিনাল ভেসিকল (seminal vesicle) নামে পরিচিত। সেমিনাল ভেসিকল শুক্রাণু (spermatozoa) সঞ্চিত রাখে। একজোড়া সহায়ক গ্রন্থি (accessory glands) বা মাশরুম গ্রন্থি (mushroom glands) ক্ষেপন নালিতে উন্মুক্ত হয় ।

মাশরুম গ্রন্থি নিঃসৃত তরল পদার্থ শুক্রাণু স্থানান্তকরণে (স্ত্রী ঘাস ফড়িং-এ) সহায়তা করে। ক্ষেপন নালি পেনিস (penis) বা ইডেগাস (aedegus) এ উন্মুক্ত হয়।

২. স্ত্রী প্রজনন তন্ত্র (FEMALE REPRODUCTIVE SYSTEM)

স্ত্রী ঘাসফড়িং এ একজোড়া ডিম্বাশয় থাকে যা অন্ত্রের উপরে মিডিয়ান লিগামেন্ট (median ligament) দ্বারা পৃষ্ঠীয় প্রাচীরের সাথে আটকানাে থাকে।

প্রতিটি ডিম্বাশয় (ovary) লম্বাটে এবং ক্রমান্বয়ে সরু বেশ কতকগুলাে ওভারিওলস (ovarioles) বা অণুডিম্বাশয় দ্বারা গঠিত। প্রতিটি ওভারিওল সারিবদ্ধভাবে সজ্জিত বর্ধনশীল ডিম্বক বহন করে। ডিম্বনালি দুইটি একত্রিত হয়ে একটি ক্ষুদ্র প্রকোষ্ঠ গঠন করে। একে যােনি (vagina) বলে।

যােনি ওভিপজিটরের (ovipositor) মাধ্যমে বাহিরে উন্মুক্ত হয়। যােনির অদূরে অবস্থিত স্পার্মাথিকা (spermtheca) বা সেমিনাল রিসেপ্টেকল (secminal receptacle) হতে স্বতন্ত্র নালি যােনিতে উন্মুক্ত হয়।

যােনির সাথে সংযুক্ত সহায়ক গ্রন্থি (accessory gland)কে কোল্যাটেরিয়াল গ্রন্থি (colleterial gland) বলে। কোল্যাটেরিয়াল গ্রন্থি থেকে নিঃসৃত রস সিমেন্ট জাতীয় পদার্থ ডিম পাড়ার পর ডিমগুলােকে একত্রে রাখতে সহায়তা করে। স্পার্মাথিকায় শুক্রাণু সঞ্চিত থাকে।

রেচন তন্ত্র((Excretory System)

যে শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়ায় কোষীয় বিপাকের ফলে সৃষ্ট নাইট্রোজেন ঘটিত বর্জ্য পদার্থ দেহ থেকে নিষ্কাশিত হয় তাকে রেচন (Excretion) বলে ।

যে অঙ্গ দ্বারা রেচন কাজ সম্পাদিত হয় তাকে রেচন অঙ্গ বলে ।

রেচনে সাহায্যকারী অঙ্গগুলাে মিলিত হয়ে যে তন্ত্র গঠিত হয় তাকে রেচনতন্ত্র বলে । ঘাসফড়িংয়ের প্রধান রেচন অঙ্গ হলাে ম্যালপিজিয়ান নালিকা (Malpighian tubules)।

এছাড়া ফ্যাট বডি (Fat Body), নেফ্রোসাইট (Nephrocyte), রেক্টাল গ্রন্থি (Rectal gland), বহিঃকঙ্কাল (Exoskeleton) ঘাসফড়িংয়ের রেচন পদার্থ নিষ্কাশনে সাহায্য করে।

ম্যালপিজিয়ান নালিকা

অবস্থান ও প্রকৃতি

মধ্য ও পশ্চাৎ পৌষ্টিকনালির সংযােগস্থলে পীতবর্ণের সূক্ষ্ম সুতার গুচ্ছাকার নালিকা দেখা যায়। এদের ম্যালপিজিয়ান নালিকা বলে ।

এরা সংখ্যায় প্রায় ১০০টি । প্রতিটি নালিকার একপ্রান্ত পৌষ্টিক নালিকার সাথে যুক্ত থাকে। এই প্রান্তটি খােলা । অপরপ্রান্ত হিমােসিলে ভাসমান অবস্থায় থাকে।এই প্রান্তটি বন্ধ

গঠন

প্রতিটি ম্যালপিজিয়ান নালিকা প্রায় ২৫ মিলিমিটার লম্বা, এক মিলিমিটার ব্যাসযুক্ত, নলাকার ও ফাপা । নালিকার ভিতরের ফাঁপা গহ্বরকে লুমেন (Lumen) বলে ।

প্রতিটি নালিকার প্রাচীর একস্তর বিশিষ্ট এপিথিলিয়াম কোষ দিয়ে গঠিত। কোষস্তরের বাইরের দিক বেসমেন্ট পর্দা (Basement membrane) দিয়ে আবৃত থাকে ও ভিতরের দিকে সিলিয়াযুক্ত বিশেষ বৈশিষ্ট্যপূর্ণ ব্রাশবর্ডার গঠন করে ।

রেচনপদ্ধতি/কার্যপদ্ধতি

প্রতিটি ম্যালপিজিয়ান নালিকার পৌষ্টিকনালি সংলগ্ন গােড়ার অংশ ক্ষরণ এবং দূরবর্তী বদ্ধ প্রান্তীয় অংশ শােষণের কাজ করে ।

বন্ধ প্রান্তীয় অংশ হিমােসিলের হিমােলিঙ্ক থেকে পটাসিয়াম ইউরেট (PU), পানি ও CO2 শােষণ করে। নালিকার ভিতরে এগুলাে পরিবর্তিত হয়ে পটাসিয়াম বাইকার্বোনেট (PB) ও ইউরিক এসিড (UA)-এ পরিণত হয় ।

নালিকার পৌষ্টিকনালি সংলগ্ন অংশ দ্বারা পটাসিয়াম বাইকার্বনেট ও কিছু পানি পুনঃশােষিত হয়ে হিমােলিম্ফে ফিরে আসে এবং রেচন পদার্থ হিসেবে ইউরিক এসিড পানির সাথে পৌষ্টিক নালির গহ্বরে প্রবেশ করে। পশ্চাৎ অস্ত্রের মলাশয়ে অধিকাংশ পানি।

পুনঃশােষিত হয় এবং শক্ত ইউরিক এসিড দানা হিসেবে মলের সাথে পায়ুপথে নিষ্ক্রান্ত হয় ।পরিপাক নালিতে রেচন পদার্থ প্রেরণ ও পানি পুনঃশোষণ ও সংরক্ষণজনিত অভিযোজনের জন্য ঘাসফড়িং পানি পান করে না।

ঘাসফড়িংয়ের নেফ্রসাইটগুলাে হিমােলিম্ফ থেকে রেচন পদার্থ শােষণ করে এবং ফ্যাটবডির ইউরেট কোষ হিমােলিম্ফ থেকে ইউরিয়া শােষণ করে। এছাড়া খােলস মােচন ও একধরনের রেচন প্রক্রিয়া ।

ঘাসফড়িংয়ের নিম্ফ দশায় দেহে কিউটকলের নিচে রেচন পদার্থ সঞ্চিত থাকে। নিম্ফ যখন খোলস মােচন করে তখন এই রেচন পদার্থগুলাে কিউটিকলের সাথে দেহ থেকে দূরীভূত হয়

Leave a Comment